গুপ্তক্ষেত্র নীলমাধব (ধারাবাহিক) —- সুজিত পাঠক

মহান দেশ ভারতবর্ষ। বানা ধর্ম, নানা বর্ণের মানুষের বসবাস এই পবিত্র দেশে। এখানকার ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, কৃষ্টি সবেতেই এক সনাতনী ছোঁয়া বিরাজ করছে। শ্রীরামচন্দ্র, শ্রীকৃষ্ণ, চৈতন্য মহাপ্রভু, গুরু নানকের লীলাক্ষেত্র এই ভারতবর্ষ। দেবভূমি এই ভারতবর্ষ।

পরম করুণাময়, জগত সঞ্চালনকারী ভগবান শ্রীবিষ্ণু নানা রূপে, নানা ভাবে ঘুরে ঘিরে এসেছেন এই ধরনীর মাঝে তাঁর অপার অসীম লীলা দেখাতে। পাপে পূর্ণ ধরণীকে পাপ মুক্ত করে ভক্তি আর সাম্যের কথা শেখাতে। তাইতো ভারতবর্ষের এই পূন্যভূমিতে জন্ম গ্রহণ করলে ধন্য হয় মানব জীবন। হরি কথা কানে এলে দূর হয় পাপের কলুষতা, নাশ হয় বিদ্বেষ ও হিংসার।

সমগ্র ভারতবর্ষ যদি ভ্রমন করা যায়, তাতে সারা ভারতবর্ষে যত মন্দির বা দেবস্থান আছে, তা সমগ্র পৃথিবীর কোথাও নেই। ধর্মপ্রাণ ভারতবাসী আত্মস্থ করে নিয়েছে ঈশ্বরবাদকে, তারা ঈশ্বরে বিশ্বাসী। দান, ধ্যান, জপ, তপ পূজাপাঠ ভারতবাসীর জীবনের অঙ্গ। যা ভারতবাসী হিসেবে আমাকেও গর্বিত করে।

মন্দির ও ধর্মীয় গাথায় ঘেরা ভরতবর্ষে তেমনই একটি রাজ্য হলো ‘ওড়িশা’। ভারতবর্ষের মন্দির রাজ্যগুলির মধ্যে অন্যতম। এখানে প্রতিটি পাড়ায়, প্রতিটি গলিতে অন্তত একটি করে মন্দির পাওয়া যাবেই। যেখানে জগতস্বামী জগ্ননাথদেব পূজিত হচ্ছেন অত্যন্ত নিষ্ঠার সঙ্গে। ওড়িশা মানেই আমরা এক বাক্যে শ্রীক্ষেত্র পুরীর জগন্নাথধামের কথাই চিন্তা করি। যেটা জগন্নাথ দেবের লীলা ক্ষেত্র বলে প্রচারিত। কিন্তু জগন্নাথ দেবের গুপ্তক্ষেত্র এবং আদিরূপ যেখানে প্রকটিত সেটি হলো ওড়িশারই কণ্টিল্য ধাম ‘নীলমাধব’, যা অদ্যাবধি গুপ্ত।

আজ সেই গুপ্ত তীর্থ নীলমাধব আদিরূপের বর্ণমায় অবতীর্ণ হবো।

(ধারাবাহিক চলবে)।

Please follow and like us:
0

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *